• ৮ অক্টোবর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • ২৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বহুবার দাবী জানিয়েও সাক্ষাৎ মেলেনি,প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় —–জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন

0

মে দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী তার কাছে দাবী জানালে সমস্যার সমাধান হবে বলে যে বক্তব্য দিয়েছেন তাকে স্বাগত জানিয়েছে জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামরূল আহসান ও সাধারণ সম্পাদক জনাব আমিরুল হক আমিন। বিবৃতিতে তারা বলেছেন, বিদেশীদের কাছে অভিযোগ জানানো শ্রমিক সংগঠনের কাজ নয়। বরং বিদেশীদের সাথে দেন দরবার করা শ্রমজীবী মানুষের জন্য অপমানজনক। শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য মজুরী,ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার, চাকুরী রক্ষা, কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা, ক্ষতিপূরণ এমন কি বিরাষ্ট্রীয়করণ প্রতিরোধসহ শ্রমিকদের অধিকারের জন্য আন্দোলন করে আসছে। শ্রমিক সংগঠন সমুহের পক্ষ থেকে পাটকল রক্ষা, জাতীয় ন্যুনতম মজুরী, গণতান্ত্রিক শ্রম আইন, ট্রেড ইউনিয়ন অধিকারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণের বহু চেষ্টা করা সত্ত্বেও তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে নিকট অতিতে কোন উদ্যোগে নেয়া হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। এমনকি তাঁর বর্তমান সরকারের আমলে ‘শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদের’ সাথেও কোন আলোচনায় বসেননি। ই.পি.জেড সহ স্পেশাল ইকনোমিক জোন এলাকা যা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের অধীন সেখানেও শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আইন প্রণয়ন প্রক্রিয়াও আমরা দেখছি না। ই.পি.জেড এলাকার একাধিক কারখানার শ্রমিকরা তাদের কাজের মজুরিসহ আইনি পাওনা পরিশোধের দাবিতে বিভিন্নকর্মসূচী পালন করছে। অতএব, যে কোন সমস্যা প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানানোর যে আহবান তিনি জানিয়েছেন সেই আহবান কি কথার কথা, না কি তিনি শ্রমিক স্বার্থে প্রকৃতই আন্তরিক তা শ্রমজীবি মানুষের জীবনমান উন্নয়ন ঘটিয়ে দেখাতে হবে। মালিকদের স্বার্থ রক্ষায় রাষ্ট্রের যততৎপরতা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নে সেই ভুমিকার সিকিভাগও আমরা দেখতে পাই না। মালিকশ্রেনীর মুনাফা অর্জনের পথ সুগম করা এবং শ্রমিকদের উপর নিপীড়নমূলক আইন ও পুলিশি আক্রমণ আমরা প্রতি নিয়ত দেখছি। নেতৃদ্বয় ৮ ঘন্টা কর্মদিবস, জাতীয় ন্যুনতম মজুরী ২০ হাজার টাকা, কর্মক্ষেত্রে শ্রমিকের মৃত্যুতে আজীবন আয়ের সমান ক্ষতিপুরণ , আহতদের চিকিৎসা পুনর্বাসন, শ্রমিকদের জন্য রেশন আবাসন পেনশনসহ স্কপ ঘোষিত ৯ দফা মেনে নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান।

Share.