• ২৬ অক্টোবর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১০ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ক্রসফায়ার বা যে নামেই ডাকা হোক বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড সন্ত্রাস বা মাদক নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না —–রাশেদ খান মেনন

0

ক্রসফায়ার বা যে নামেই ডাকা হোক, বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড এযাবত সন্ত্রাস বা মাদক নিয়ন্ত্রণে কোন ভূমিকা পালন করতে পারেনি”। বরং রাষ্ট্রকেবিপদাপন্ন করেছে। মেজর সিনহার মৃত্যুতে রাষ্ট্রের দু’টি বাহিনীকে প্রায় পরস্পর মুখোমুখি দাড় করিয়ে দিয়েছিল। দুইবাহিনীর প্রধানকে নজিরবিহীন যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন করে সবাইকে আশ^স্ত করতে হয়েছে।আর অন্যদিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভে দেড়শ’র উপর মানুষকে ক্রসফায়ার দেয়ার পরও গত সপ্তাহেই সেখান থেকে কয়েক লাখ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এসব কারণেই মানুষের মৌলিক অধিকার হরণকারী এই অমানবিক আচরণকে এখনই বন্ধ করতে হবে।আজ বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির ‘সন্ত্রাসবিরোধী দিবস’-এর এক ভার্চুয়াল আলোচনায় ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খানমেনন এমপি একথা বলেন। উল্লেখ্য, ১৯৯২ সালের এই দিনে সন্ধ্যায় পার্টি কার্যালয়ের সামনে রাশেদ খান মেননকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলী করা হয়েছিল। দেশে- বিদেশে চিকিৎসা ও দেশবাসীর ভালবাসা আর দোয়ায় তিনি জীবন ফিরে পান এবং এখনও মানুষের পাশে থেকে রাজনীতি করছেন। রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘ক্রসফায়ার’-এর নামে বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড সম্পকে আইনশৃংখলা
বাহিনীরা যে যুক্তি দিয়ে থাকেন তাই দেশের মানুষের শব্দভান্ডারে যুক্ত হয়েছে। এ ধরণের কথা বলে মানুষের দৃষ্টি বিভ্রান্ত করা যাবেনা। বরং এ নিয়ে মানুষের মধ্যে যে অনাস্থাবোধ সৃষ্টি হয়েছে তাকে দূর করতে হবে।পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, আটাশবছর ধরে রাশেদ খান মেননকে হত্যা প্রচেষ্টার বিচার না হওয়া এ দেশে যে বিচারহীনতার সংস্কৃতি প্রচলিত রয়েছে তারই একটি দৃষ্টান্ত। খালেদা জিয়ার বিএনপি-জামাত জোট সরকার ‘অপরাশেন ক্লিন হার্ট’ হত্যাকে আইন করে দায়মুক্তি দিয়েছিলেন, আর এখন তারই অনুসরণে বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ডকে অঘোষিত দায়মুক্তি দেয়া হচ্ছে। তিনি এ ধরণের সব হত্যাকান্ডকে বিচারের আওতায় এনে দেশে আইনের শাসনকে দৃশ্যমান করার আহবান জানান।ভার্চুয়াল আলোচনায় আরও বক্তব্য রাখেন পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড আনিসুর রহমান মল্লিক ও কমরেড ড. সুশান্ত দাস। সভা পরিচালনা করেন কমরেড নুর আহম্মদ বকুল।

Share.

Leave A Reply