• ১৭ এপ্রিল ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রস্তাবিত সাইবার নিরাপত্তা আইন সম্পর্কে হতাশা প্রকাশ করেছে ওয়ার্কার্স পার্টি

0
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রতিস্থাপনের জন্য প্রস্তাবিত সাইবার নিরাপত্তা আইন সম্পর্কে হতাশা প্রকাশ করেছে। এ প্রসঙ্গে আজ ১২ আগস্ট ’২৩ ওয়ার্কার্স পার্টির দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয় প্রস্তাবিত সাইবার নিরাপত্তা আইন থেকে মৌলিকভাবে ভিন্ন কিছু নয়। ডিজিটাল আইন নিয়ে দেশে-বিদেশে সমালোচনার প্রেক্ষিতে ঐ আইন সংস্কারের কথা আইনমন্ত্রী বলে এসেছিলেন। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে ঐ আইনের যে সব ধারা সম্পর্কে আপত্তি উত্থাপন করা হয়েছে এবং যে সব ধারার অপপ্রয়োগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন দেশের মধ্যে এক ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করেছিল সে সব বাতিল হয় নাই, সেসবের ক্ষেত্রে সাজার মেয়াদ কমানো হয়েছে এবং ঐ সকল ধারা জামিন যোগ্য করা হয়েছে। আইনমন্ত্রী নিজেই বলেছেন যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল বা রহিত করা হয়নি ঐ সকল ধারায় শাস্তির মেয়াদ ও জামিনের বিষয়টি শিথিল করা হয়েছে মাত্র। ওয়ার্কার্স পার্টির বিবৃতিতে একই সময় গত বছরসমূহের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে যে সব মামলা হয়েছে তাও বহাল রাখার যে কথা বলা হয়েছে তাও গ্রহণযোগ্য নয় বলে বলা হয়। ওয়ার্কার্স পার্টির বিবৃতিতে বলা হয় এ ক্ষেত্রে সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের তরফ থেকে যে আপত্তি উত্থাপন করা হয়েছিল প্রস্তাবিত আইন প্রণয়নের ক্ষেত্রে সে সবও যথাযথ বিবেচনা করা হয় নাই। এর ফলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সংবাদপত্র নিয়ন্ত্রণ ও সাংবাদিকদের হয়রানীর যে অবারিত সুযোগ ছিল প্রস্তাবিত আইনে তাই-ই বহাল থাকবে। ওয়ার্কার্স পার্টির বিবৃতিতে প্রস্তাবিত আইনকে নাকের বদলে নরুণ পাওয়ার শামিল বলে অভিহিত করা হয় এবং বলা হয় এর ফলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপপ্রয়োগের যে অভিযোগ আইনমন্ত্রী বিভিন্ন সময় স্বীকার করেছেন সেই অপপ্রয়োগের সুযোগও একইভাবে রয়ে যাবে।
ওয়ার্কার্স পার্টির বিবৃতিতে প্রস্তবিত আইন চূড়ান্ত করার পূর্বে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংবাদপত্র ও সাংবাদিক তথা অংশীজনদের সাথে আলাপ করা হবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়।
Share.