• ৪ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১৪ দলের আন্দোলনের শহিদ রাসেল এখন দলীয় শহিদ, ১৪ দলের আন্দোলনের ক্ষমতা এখন দলীয় ক্ষমতা —-রাশেদ খান মেনন

0

“১৪ দলের আন্দোলনের শহিদ রাসেল আহমেদ খান ঘটনার বিবর্তনে এখন দলীয় শহিদে পরিণত হয়েছেন। ১৪ দলের আন্দোলনের ফসল রাজনৈতিক ক্ষমতা একইভাবে দলীয় ক্ষমতায় পরিণত হয়েছে। পত্রিকায় বিবৃতি, দিবস পালন বা এ ধরণের কাজ ছাড়া ১৪ দলের অস্তিত্ব আছে কিনা এটা কেবল জনগণের প্রশ্ন নয়, ১৪ দলের নেতা কর্মীদেরও প্রশ্ন। পত্রিকায় বলা হয়, মন্ত্রীত্ব না পাওয়ায় ১৪ দলের শরীকদের সাথে আওয়ামী লীগের দুরত্ব বাড়ছে। কিন্তু এই ১৪ দলের শরীকদল যে ১৪ দলের নীতি-আদর্শের প্রশ্নে মন্ত্রীত্ব পেয়েও তা গ্রহণ করেনি সে কথা তারা ভুলে যান। ১৪ দল কেবল ক্ষমতার জন্য গঠিত হয়েছিল না, হয়েছিল দুনীর্তি-দুর্বৃত্তায়ন, হত্যা-নির্যাতনের রাজনীতির অবসান ঘটিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে রাষ্ট্র ও রাজনীতির পুনর্গঠনের জন্য। যুদ্ধাপরাধের বিচার, বঙ্গবন্ধু হত্যা, জেলহত্যার বিচার অবশ্যই চৌদ্দদলের সাফল্য কিন্তু ক্রসফায়ার, গুম, অপহরণ, বিচারহীনতার সংস্কৃতি, সম্প্রদায়িকতার বিস্তার, দুরাতীক্রম্য অর্থনৈতিক বৈষম্য, অর্থনীতিতে জনগণের অনাগ্রহ ও রাজনীতিতে কোটিপতিদের নিয়ন্ত্রণ মুক্তিযুদ্ধের পথে প্রত্যাবর্তনকে কেবল ভ্রান্ত প্রমাণ করছে না, ঘটছে উল্টো পথে যাত্রা। রাসেল সহ চৌদ্দদলের আন্দোলনে শহিদদের ভুলে যাওয়া হবে, সেটাই স্বাভাবিক কিন্তু সেদিন বোধ হয় খুব দূরে নয়, যখন শহিদের রক্ত আবার ডাক দেবে, রাজনীতির আমানিশা ভেঙ্গে নতুন প্রজন্ম মুক্তির নতুন পথ দেখাবে।”

আজ ২৮ অক্টোবর ২০২০। ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবর চৌদ্দদলের বিক্ষোভ মিছিলে পল্টন মোড়ে জামাত-শিবিরের উপর্য্যুপরী গুলীবর্ষণে যুব মৈত্রী নেতা শহিদ রাসেল আহম্মেদ খানের চতুর্দশ মৃত্যুবার্ষিকীতে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগর আয়োজিত স্মরণ সভায় ভিডিও কলে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জননেতা কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি একথা বলেন ।

এর আগে পার্টি অফিস চত্বরে যুব মৈত্রী স্থাপিত শহিদ রাসেল আহম্মেদ খানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষে পলিটব্যুরোর সদস্য কমরেড আনিসুর রহমান মল্লিক, কমরেড কামরূল আহসান, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড আমিরুল হক আমিন, কমরেড মোস্তফা আলমগীর রতন, কমরেড সাব্বাহ আলী খান কলিন্স, কমরেড আবুল হোসেন, কমরেড কিশোর রায়, কমরেড মুর্শিদা আখতার নাহার, কমরেড মুতাসিম বিল্লাহ সানি, কমরেড কাজী মাহমুদুল হক সেনা প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগরের সভাপতি কমরেড আবুল হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড কিশোর রায় এর নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয় এ সময় উপস্থিত ছিলেন কমরেড জাহাঙ্গির আলম ফজলু কমরেড আনোয়ারুল ইসলাম টিপু, কমরেড মুর্শিদা আখতার নাহার, কমরেড মোতাসিম বিল্লাহ সানি, কমরেড কাজী মাহমুদুল হক সেনা, কমরেড তাপস দাস, কমরেড তাপস কুমার রায়, কমরেড রফিকুল ইসলাম সুজন, কমরেড তপন সাহা, কমরেড ওমর ফারুক সুমন প্রমুখ।

ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টি আয়োজিত শহিদ রাসেল আহম্মেদ খান স্মরণে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় সদস্য ও ঢাকা মহানগর সভাপতি কমরেড আবুল হোসাইন। সভার শুরুতে শহিদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সভায় সাম্প্রদায়িকতা, স্বৈরাচার বিরোধী, গণতন্ত্রের সংগ্রামে শহিদ রাসেলের আত্মদান ও বর্তমান পরিস্থিতি শীর্ষক লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন কমরেড সাদাকাত হোসেন খান বাবুল। বক্তব্য রাখেন পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড আনিসুর রহমান মল্লিক, কমরেড মোস্তফা আলমগীর রতন, কমরেড সাব্বাহ আলী খান কলিন্স, কমরেড কিশোর রায়, কমরেড জাহাঙ্গীর আলম ফজলু, ছাত্র নেতা ফারুক আহমেদ রুবেল প্রমুখ।

Share.

Leave A Reply